এক্ষন কলা গাছে লাগিক দেন

২০০৯ সালের একটা ঘটনা মনে পরলে এখনো খুব হাসি পায়, আমার একটা আঙ্কেল “ইউএসএ” থেকে বাংলাদেশে বেড়াতে আসছিলেন।

যাওয়ার কিছুদিন আগে আমাদের বাড়িতে আসছেন, বরাবরের মতোই সিঙ্গেল ম্যান গেস্ট আসলে আমার বেড শেয়ার করা লাগে।

শীতের রাতে সবাই দশটার মধ্যেই খাওয়া দাওয়া শেষ করে বিছানায় শুয়ে পড়েছে, আমিও উনাকে নিয়ে শুইলাম।
উনি বাংলা খুব অল্প জানেন, বাংলা ইংলিশ মিক্স করে দুনিয়ার সব প্রশ্ন করেই যাচ্ছেন।
এদিকে ঘুমে অবস্থা খারাপ আমার, পুরা রাত বকবক করে কাটালাম।


যাইহোক, খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে পড়লাম। নামাজ পড়ে গেলাম নদীর পাড় ঘুরতে। হালকা রোদ আর কুয়াশা মিশ্রিত পরিবেশটা ছিল দেখার মতো।


নদীর ওপারে ছিল রেমা চা বাগান তার পাশে বিশাল পাহাড় আর রাবার বাগান, এর ডান পাশ ঘেঁষে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের ছোট একটি শহর “খোয়াই টাউন” ।
এসব আমি উনাকে দেখাইতেছিলাম আর বোঝাচ্ছিলাম।


এপারের মানুষ গরু নিয়ে ওপারে মাঠে কেনো যায় কি করে এরকম হাজার খানেক প্রশ্নের উত্তর শেষে উনার বায়না হলো নদীর ওপারে নিয়ে যাওয়ার।
নদীতে পানি কম থাকায় নিয়ে গেলাম।


সারা বাগান ঘুরে পাহাড়ের উপর একটা লেবারের বাড়িতে গিয়ে উঠলাম, বাগানের শ্রমিকদের অধিকাংশই রাখাইন, গারো, সাঁওতাল, সম্প্রদায়ের।
অনেকটা আফ্রিকান লোকজনের মতো দেখতে।
ওরা কেন এই দেশে আসলো কি খায় কি পরে দুনিয়ার সব প্রশ্ন করেই যাচ্ছেন আর আমি এর বাংলা তর্জমা করে যাচ্ছি। বোঝা যাচ্ছে আমরা একটা ডকুমেন্টেরিতে এসেছি।


এদিকে খিদায় পেট যায় যায় অবস্থা আমার।
ওনার ইতিহাস শেষ করতে প্রায় সন্ধ্যা হয়ে গেছে আর পারছি না বাড়ি ফিরবো।
একটা কলা বাগানের ভেতর দিয়ে সটকার্ট হবে তাই এর ভেতর দিয়ে যাচ্ছিলাম।
একটা কলা গাছে পাকা কলা দেখে উনার খুব খাওয়ার ইচ্ছা হলো।


কেউ নাই আশেপাশে কি করবো বুঝার আগেই উনার বাপ দাদার সম্পত্তি ভেবে কলা ধরে টান দিলেন।।
হঠাৎ হুড়মুড় করে দশ বারো জন লেবার আমাদের ঘিরে ফেলেছে সবার হাতেই দা, কুঠার, আর তীর।
একটা পিচ্চি ছেলে হাঁটুর বয়সী আমার পেটের কাছে ছুরি ধরে বলতেছে ওর বাপকে “বাবা ঘিড়াই দিক ইগার পেটে”?
আমার তো অবস্থা একেবারেই যায় যায়, ওদের একজন বলতেছে,
– আমাগ কলা কেন পেরেচন? (এইদিকে আমার আঙ্কেল ইংলিশে বোঝাচ্ছেন ওদের (“hey man it’s a wonderful ripe natural fruit, wts prb bro…?”)

– আমি ওই লোককে বললাম; কেউ ছিলনা ভাই, আমি খুজেছি আপনারা কেউ ছিলেন না তাই…।

– বুঝতে পারছি তবে আমাগ কলা কেন পেরেচন?

– দেখেন খুব খিদেও….

– বুঝতে পারছি, তবে আমাগ কলা কেন পেরেচন?

– টাকা নিয়ে নেন ভাই….

– বুঝতে পারছি, তবে আমাগ কলা কেন পেরেচন?

মোর জ্বালা, এ একই গান বার বার রিপ্লাই দিতেছে। রাগে ভয়ে আর খিদায় আমি শেষ একদম।
শেষে একটা সমাধান অবশ্য তারা দিয়েছিলো আমাদের, যা শুনে জবান আমার বন্ধ হয়ে যায়।
.
যাইহোক একজন বাঙালি বাবু আমাদের সেদিন বাছিয়েছিলেন।
রাতে বাড়ি ফিরে আঙ্কেলকে ইচ্ছে মতো বকেছিলাম বাংলিশে।

ও হা, তাদের সমাধানটা ছিলো, আমাগ কলা কেন পেরেচন? এক্ষন কলা গাছে লাগিক দেন, নহইলে লাউড়া গিড়াই দিবুক এগেরে।
.
লিখা-Bablu Ahmed Robin

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here